পেটের টানে কয়লা চুরি করতে গিয়ে খনি ধসে মৃত ৩ ,আহত ২, নিখোঁজ ১

News

১০০ দিনের কাজ নেই। ফলে পেটের টানেই দিনের পর দিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বেআইনি ভাবে খাদানে থেকে কয়লা চুরি করতে বাধ্য হত তারা। বৃহস্পতিবার ভোরে বাঁকুড়ার বড়জোড়ায় পিডিসিআইএলর খাদানে মালিয়ারা গ্রাম পঞ্চায়েতের তিনায় পাড়ার ৬ জন গরীব মানুষ ঢুকে ছিল কয়লা চুরি করতে। কিন্তু সেই সময় হঠাৎ করেই খাদানে ধস নামে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তিন জনের। মৃতদের নাম বিশ্বনাথ বাগদি, হাবল বাগদি ও কাঁকলি বাগদি। ঘটনায় আহত আরো দুজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রিঙ্কু বাগদি নামে আরও একজন এখনো পর্যন্ত নিখোঁজ।

সকালে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় পুলিশ। শুরু হয় উদ্ধারকাজ। তিন জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা গেলেও একজন এখনো নিখোঁজ। খাদানের পাশেই একটা বড় অংশ জুড়ে জল জমে রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। ওই জায়গাটি বেশ গভীর বলে জানা গেছে। তাই সেখানেও উদ্ধার কাজ চালানো হয়। মৃত তিন জনের মধ্যে দুজন একই পরিবারের।

মৃত হাবুল বাগদির স্ত্রী সন্ধ্যা বাগদি ক্ষোভের সুরে জানান, ” সরকারি প্রকল্পের কোনো কাজ তারা পাননা গ্রামে। সিপিএম ক্ষমতা থাকার সময় কাজ পেলেও পট পরিবর্তনের পর থেকে তারা আর ১০০ দিনের কাজও পাননি। তাই উপায় না দেখে পেটের টানে কয়লা চুরি করতে তারা বাধ্য হন।”

তিনায় পাড়ার আর এক বাসিন্দা সীমা বাগদির দাবি সরকার যদি তাদের দিকে একটু নজর ফেরাতো তাহলে আজ এই ঝুঁকির কাজ করতে যেতে হতনা তাদের। বামেদের সমর্থক হিসেবে পরিচিত হওয়ায় তারা ১০০ দিনের কাজ পাওয়া থেকে বঞ্চিত। ফলে সন্তানের মুখে দুমুঠো ভাত তুলে দেওয়ার তাগিদেই প্রানের ঝুঁকি নিয়ে খাদানে যেতে বাধ্য হন তারা।

কিন্তু এবিষয়ে গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান শান্তনু তিওয়ারিকে প্রশ্ন করা হলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি বলেন,” গ্রামে ১০০ দিনের কাজ দেওয়ার সময় কখনও কে কোন রাজনৈতিক দলের তা দেখা হয়না। দলমত নির্বিশেষে ১০০ দিনের কাজ দেওয়া হয়। তিনি বলেন অতিরিক্ত টাকা উপার্জনের লোভে খাদানে কয়লা চুরি করতে গিয়েছিল ওই ৬ জন। ভবিষ্যতে যাতে এধরনের দুর্ঘটনা না ঘটে তার দিকে নজর দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।

রাজ্যে ১০০ দিনের কাজ খাতায় কলমে দেখালেও মানুষ কাজ পায় না। একাধিক বার এই অভিযোগ অভিযোগ করেছেন বামেরা। বাঁকুড়ার বড়জোড়া এদিনের ঘটনা কি সেই দিকেই ইঙ্গিত করে না? আপাতত এই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে আম জনতার দরবারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *