অস্ট্রিয়ায় বামপন্থীদের উদ্যোগে পালিত যুদ্ধ বিরোধী সমাবেশ

International News

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক,অস্ট্রিয়া,৪ ঠা সেপ্টেম্বর: অস্ট্রিয়া যুদ্ধবিরোধী দিবস বা বিশ্ব শান্তি দিবসে পালন করলো অস্ট্রিয়ান লেবার পার্টি (পিডিএ), কমিউনিস্ট ট্রেড ইউনিয়ন ইনিশিয়েটিভ (কোমিন্টার্ন) এবং কমিউনিস্ট ইয়ুথ (কেজে) সদস্যরা। ভিয়েনার শোয়ার্জেনবার্গ প্লাটজে সমাবেশ আয়োজিত হয় ১৯৪৫ সালে স্থাপিত রেড আর্মি স্মৃতিসৌধের সামনে।

১৯৩৯ সালের ১লা সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর বার্ষিকী হিসেবে স্মরণ করা হয় যুদ্ধ বিরোধী দিবস হিসেবে।তবে নিরস্ত্রীকরণ এবং শান্তি নীতি পালনের দাবি করা হয়েছে। চেম্বার অফ লেবার কাউন্সিলর সেলমা শাখ্ট, কেজে -এর প্রতিনিধি এবং পিডিএ চেয়ারম্যান টিবোর জেনকার বক্তৃতা দেন সমাবেশে।

অস্ট্রিয়া সম্পর্কে জেনকার তার বক্তব্যে মন্তব্য করেন অস্ট্রিয়ান সশস্ত্র বাহিনী বর্তমানে এবং বহু বছর ধরে বলকান, বিশেষত বসনিয়া-হার্জেগোভিনা এবং সার্বিয়ান কসোভোতে সাম্রাজ্যবাদী দখলদার সেনাদের অন্যতম প্রধান দল হিসেবে পরিচিত। এমনকি সাম্প্রতিক বছরগুলিতে আফগানিস্তান পর্যন্ত তাদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। প্রতিদিন সংবাদে দেখা যায় অস্ট্রিয়ার সশস্ত্র বাহিনী ইউরোপীয় ইউনিয়নের সামরিক কাঠামোতে অংশগ্রহণ করে।

সামগ্রিকভাবে, একচেটিয়া পুঁজির মুনাফা স্বার্থ, পুঁজিবাদী শোষণ এবং নিপীড়ন সামরিক দ্বন্দ্বের গভীরতম শিকড় গঠন করে, পিডিএ চেয়ারম্যান ব্যাখ্যা করেন।যুদ্ধ, সামরিকতা এবং দখলদারিত্ব, হস্তক্ষেপের রাজনীতি শাসক শ্রেণীর অগ্রাধিকারে। তারা পুঁজিবাদ এবং সাম্রাজ্যবাদের সাথে অবিচ্ছিন্নভাবে যুক্ত।

জেনকার বলেন যুদ্ধ বিরোধী দিবসে অঙ্গীকার থাকুক সাম্রাজ্যবাদী আগ্রাসন, অস্ত্র কোম্পানির মুনাফা এবং সামরিক বাহিনীর আধুনিকীকরণ অবসান ঘটাতে হবে ।এই মুহূর্তে ইউরোপে একটি শান্তি আন্দোলন দরকার যা অস্ত্র ব্যবসায়ের বিরুদ্ধে এবং যুদ্ধের বিরুদ্ধে সংগঠিত করতে হবে। সেইসাথে একটি বিপ্লবী শ্রমিক আন্দোলনও প্রয়োজন যা মার্কসবাদ-লেনিনবাদের ভিত্তিতে শুধু সামরিক-বিরোধী এবং সাম্রাজ্যবাদ-বিরোধী নয় পুঁজিবাদ নামে একটি ব্যবস্থা বদলের ল9খেয়ে লড়াইয়ে চালিয়ে যেতে হবে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *