সেলফি ক্যামেরার দাপটে হারিয়ে যাচ্ছে বিচ ফটোগ্রাফার

District News

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক,দিঘা, ২৫ শে জুলাই:সময়ের সাথে সাথে বিচ ফটোগ্রাফাররাও যেন কেমন হারিয়ে যাচ্ছে, প্রযুক্তির উন্নতির সাথে সাথে বিচ ফটোগ্রাফাররা কাজ হারানোর আশঙ্কায় অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে থাকে। বর্তমানে দীঘা সমুদ্র সৈকত পর্যটকদের ভিড়ে বিপর্যস্ত, নতুন রোজগারের আশায় ফটোগ্রাফাররা হেটে চলেছে বিচের ধার বরাবর।অতীতের মতো তারা আর জীবিকা অর্জন করতে পারছে না, একটু পিছন দিকে যাওয়া যাক মোবাইল ফোন যোগাযোগের একটা মাধ্যম হিসেবে উঠে দাঁড়িয়েছিল নব্বইয়ের দশকে সেই মোবাইল ফোন আধুনিক হওয়ার দৌলতে সহ ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় মোবাইল ফোন থেকেই পেয়ে যাচ্ছে, ঢেউ ওঠে না আর ফটোগ্রাফারদের আয় উপার্জনে।

তাদের কথায় উঠে এলো কিছু সমস্যার কথা গোয়ার অনেক সমুদ্র বিচ ফোনের জন্য ট্যাক্স দিতে হয়,কিন্তু দিঘায় সেই সুযোগ নেই তাই যথেচ্ছ ভাবে সড়লফি ক্যামেরার দাপট বেড়েছে।

অনেক পর্যটকই নির্ভর করছেন তাদের হাতে ফোনের উপরই, কয়েক মুহুর্তের মধ্যে ঝাঁ-চকচকে ছবি হোয়াটসঅ্যাপের স্ট্যাটাসে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।সমুদ্রের সৈকতে রুদ্রের রাস্তায় জলে নতুন উদ্যমে সৃষ্টি করে ফটোগ্রাফাররাও ছবিগুলি পর্যটকদের হাতেও তুলে দিয়েছে চাহিদামত। এখন পর্যটকরা নির্ভর করছে তাদের হাতের ফোনের উপরই ফটোগ্রাফারের কথায় আরেকটি তথ্য উঠে এলো ফটো তোলার পর সফট কপি দাবি করছে কিন্তু তাদের পক্ষে দেওয়া সম্ভব হয়ে উঠছে না। তারা ছবি ওয়াশ করে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তাদের হাতে তুলে দিতে পারছে যার ফলে পর্যটকদের কাছে তাদের চাহিদা কমেছে।

ডিজিটাল যুগে ফটোগ্রাফাররা কাজ খোজার স্বপ্ন দেখছে ভবিষ্যতে সংসারে পরিবারের হাতে অন্ন তুলে দিতে ফের বিচের ধারে। সন্ধে স্রোতের আওয়াজে উৎকণ্ঠা বাড়তেই থাকে আগামী কালের পসার নিয়ে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *