বিহারে কাজের দাবিতে বাম ছাত্র যুব সংগঠনের মিছিলে কাঁদানে গ্যাস ও লাঠিচার্জ

News

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক,বিহার,১ লা এপ্রিল:সোমবার পাটনায় “রোজগার ও শিক্ষা” (জীবিকা ও শিক্ষা) দাবিতে বিক্ষোভ চলাকালীন পুলিশ লাঠিচার্জে বাম ছাত্র যুব সংগঠনের এক ডজনেরও বেশি যুবক ও শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়েছেন। সিপিআই (এমএল) এর যুব ও ছাত্র সংগঠনের বিক্ষোভ মিছিলটি শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের বিষয়ে বিহার বিধানসভা ঘেরাও অভিযানে শামিল বহু ছাত্র যুব।

পাটনার গান্ধী ময়দানের কাছে জড়ো হয়ে শত শত যুবক এবং শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমেছিল এবং তাদের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলটি এগিয়ে চলে ।কিন্তু প্রতিবাদী যুবক ও শিক্ষার্থীদের মিছিল জোর করে থামানো হয় শুরু হয় ধস্তাধস্তি পরে সংঘর্ষের রূপ নেয়।

পুলিশ প্রতিবাদকারীদের থামাতে আধা ডজনেরও বেশি টিয়ারগাস শেল নিক্ষেপ করে এবং জলকামান ব্যবহার করে। অবিরাম টিয়ারগাস শেল এবং জলের কামান সত্ত্বেও বিক্ষোভকারীরা পিছু হটতে অস্বীকার করে এবং পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য লাঠিচার্জ করলে তারা এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। লাঠিচার্জে বেশ কয়েকজন যুবক ও শিক্ষার্থী তাদের মাথা, পা, হাত, কাঁধ এবং শরীরের অন্যান্য অংশে আঘাত পেয়েছে। আহত সমস্ত বিক্ষোভকারীকে দ্রুত চিকিৎসার জন্য সরকার পরিচালিত পাটনা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

পাটনার কম্যুনিস্ট পার্টি অফ ইন্ডিয়া (মার্কসবাদী লেনিনবাদী) নেতা কুমার পারভেজের মতে লাঠিচার্জের সময় দলের তিন বিধায়ক সন্দীপ সৌরভ, মনোজ মনজিল এবং অজিত কুশওয়াহা আহত হয় পুলিশের লাঠিচার্জে।

বিধায়ক সন্দীপ সৌরভ, যিনি দলের ছাত্র সংগঠন অল ইন্ডিয়া স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন (আইআইএসএ) এর জাতীয় সাধারণ সম্পাদক, বলেছেন যে বিহারের এনডিএ সরকার যে চাকরিগুলি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তারা ইতোমধ্যে একটি বড় মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়েছে।

সিপিআই (এমএল) এর যুব ও ছাত্র সংগঠনগুলি গত মাসে নীতীশ কুমারের নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারকে ১৯ লক্ষ চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি স্মরণ করিয়ে দেওয়ার জন্য রাজ্য বিধানসভাকে ঘেরাও করার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছিল ।

রাজনৈতিক মহলে মনে করছে বঙ্গে নবান্ন অভিযানে পুলিশের যেরকম বর্বরতা দেখেছে ঠিক তেমনি বিহারেও আজ পুলিশের বেপরোয়া মনোভাব দেখা গেলো গণতান্ত্রিক আন্দোলন দমনে।গণতান্ত্রিক আন্দোলনে কি শাসক দলের সংবেদনশীলতা হ্রাস পাচ্ছে ? উঠছে প্রশ্ন।পুলিশের দমনের বিরুদ্ধে বিধানসভার বিরোধী বিধায়করা নিন্দায় সরব হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *