সংকটে রাজীব

District News Kolkata

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক,২৬ মে:সোমবার সকাল দশটায় সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে রাজীব কুমারকে হাজিরা দিতে নির্দেশ দিল সিবিআই। রবিবার সন্ধ্যায় রাজীব কুমারের বাড়িতে পৌঁছে ওই নোটিশ দেওয়া হয়েছে সিবিআই তরফ থেকে। সেখানেই রাজীব কুমারকে তলবের নোটিশ ধরানো হয় সিবিআই এর তরফে। আর তারপরই সিবি আই দল চলে যায় সেখান থেকে। জানা গেছে রবিবার সারাদিন রাজীব কুমারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছে সিবিআই। বারবার ফোন করা সত্ত্বেও ফোন ধরেননি রাজীব কুমার। তাই শেষ পর্যন্ত রবিবার সন্ধ্যায় রাজিব কুমারের বাড়িতে হাজির হয় ওই চার সদস্যের দলতদন্তকারী। তবে দলের সঙ্গে রাজীব কুমারের দেখা হয়েছে কিনা তা স্পষ্ট নয়। কারণ অফিসাররা যখন তার বাড়িতে গিয়েছিলেন তখন রাজীব কুমার সে বাড়িতে ছিলো কিনা তা জানা যায়নি।

জানা গেছে চার সদস্যের একটি সিবিআই টিম প্রথমে পৌঁছায় কলকাতা পুলিশ কমিশনারের বাসভবনে। কিন্তু সেখানে জানানো হয় ওই বাড়িতে এখন রাজীব কুমার থাকেন না। সেখানে থাকেন কলকাতার বর্তমান পুলিশ কমিশনার। তারপর সেখান থেকে সিভিআইয়ের দল চলে যায় পাকস্ট্রিটের পুলিশ কোয়ার্টারে। জানা গেছে এখন সেখানেই থাকেন রাজীব কুমার।

কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে সারদাকাণ্ডে তথ্য প্রমাণ নষ্টের অভিযোগ রয়েছে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে রাজকুমারের বাসভবনে যায় সিবিআই দল। তাদের আটকে দেওয়া হয়। কমিশনারের বাড়ির সামনেই বচসা হাতাহাতি হয় কলকাতা পুলিশের সঙ্গে সিবিআই কর্তাদের।

পরে সুপ্রিমকোর্টে যায় সিবিআই । শীর্ষ আদালত রাজীব কুমারকে রক্ষাকবচ দেয়। কিন্তু সিবিআইকে রাজীব কুমারকে জেরা করার অনুমতিও দেওয়া হয়। সেইমতো শিলং-এ গিয়ে সিবিআই জেরার মুখে ম পড়েন রাজীব কুমার। কিন্তু সিবিআই রাজিব কুমারের বিরুদ্ধে তদন্তে অসহযোগিতার অভিযোগ তোলে তারা। হেফাজতে নিয়ে জেরা করার আর্জি জানানো হয় সুপ্রিম কোর্টে। তারপরই শীর্ষ আদালত রাজীব কুমারের রক্ষাকবচ তুলে নেয়। আগাম জামিনের আর্জি খারিজ করে দেওয়া হয়। শনিবার সিবিআই look-out নোটিশ জারি করে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে। ঠিক তারপরই এই পদক্ষেপ নিল তদন্তকারী সংস্থার অফিসাররা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *