লালমাটির রান্নাঘর এক ভরসার প্রতীক

Bankura District News

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক,তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া,৮ ই সেপ্টেম্বর: করোনা পরিস্থিতিতে অসংখ্য মানুষের হাতে কাজ নেই। চরম সমস্যায় দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ গুলি। আর ঠিক সেই মুহূর্তে গত ১৫ আগষ্ট থেকে বাম ছাত্র, যুব, মহিলা সহ অন্যান্য গণ সংগঠনগুলির উদ্যোগে বাঁকুড়ার সোনামুখীতে শুরু হয়েছে ‘লাল মাটির রান্নাঘর’। যেখানে মাত্র ১৫ টাকার বিনিময়ে মিলছে ভরপেট আমিষ খাবার।

একই সঙ্গে দুঃস্থ, প্রতিবন্ধী সহ অন্যান্য বেশ কিছু জনকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে খাবারের ব্যবস্থা আয়োজকরা করেছেন। 'সংক্রমণের শৃঙ্খল ভাঙ্গো, দৃঢ় করো মানব বন্ধন। পাশে আছি আমরাই, ভয় পেয়োনা করোনায়' স্লোগানকে সামনে রেখে পথ চলা শুরু বামেদের 'লাল মাটির রান্নাঘরে'র। ইতিমধ্যে যা সোনামুখী শহরে অসংখ্য প্রান্তিক মানুষের অন্যতম ভরসার জায়গা হয়ে উঠেছে।

'লাল মাটির রান্নাঘরে'র কর্মকাণ্ডে খুশি বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু থেকে সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তী। তাঁরা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন।

বাঁকুড়া জেলা সিপিআইএম সূত্রে খবর, সোনামুখীতে ‘লাল মাটির রান্নাঘরে’র অভাবনীয় সাফল্যের পর আগামী ১০ সেপ্টেম্বর বাঁকুড়া শহরে ‘বাঁকুড়ার রান্নাঘর’ ও ১৪ সেপ্টেম্বর বিষ্ণুপুরে ‘পোড়ামাটির হেঁশেলে’র যাত্রা শুরু হচ্ছে। যেখানে যথাক্রমে ১৫ ও ১০ টাকার বিনিময়ে এক বেলা আমিষ খাবার মিলবে।'লাল মাটির রান্নাঘর' প্রসঙ্গে সোনামুখীর সিপিআইএম বিধায়ক অজিত রায় বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে অসংখ্য মানুষ কাজ হারিয়েছেন। চরম সমস্যায় দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ গুলি। তাদের কথা চিন্তা করেই পার্টির সম্মিলীত সিদ্ধান্তে 'লালমাটির রান্নাঘর' শুরু হয়। প্রতিদিন মানুষের প্রত্যাশা বাড়ছে, আমরা সেই প্রত্যাশা পূরণের চেষ্টা করছি। আর এই কাজে তাদের দলের পাশাপাশি বাইরের অনেকেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *