এক যুগ পর পাহাড়ে বাম প্রার্থীর প্রচারে নতুন সমীকরণের ইঙ্গিত

District News Siliguri

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক ২২ শে মার্চ :দার্জিলিং লোকসভা নির্বাচনে এবারের বামফ্রন্ট মনোনীত সিপিআইএম প্রার্থী সমন পাঠক ,দার্জিলিং পাহাড়ে রাজনীতির পালাবদল অনেক কাল আগেই হয়ে গেছে ২০১১ র অনেক আগে থেকেই ৯০ইএর দশকে পাহাড় থেকে দুর্বল থেকে দুর্বলতর হয়েছে সিপিআইএম। সুবাস ঘিসিংয়ের নেতৃত্বে তৈরি হয় জি এন এল এফ তৈরি করে তিনি গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে হিংসাত্মক আন্দোলন বাম সংগঠনের বহু কর্মীকে খুন পর্যন্ত হতে হয় ।

তিস্তা নদীর জল যত গড়িয়েছে রাজনৈতিক বিন্যাসের পরিবর্তন ঘটেছে , সুভাষ ঘিসিং কে সরিয়ে বিমল গুরুঙের আত্মপ্রকাশ ঘটে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা নাম নিয়ে । শোনা যায় তিনি তৎকালীন তৃণমূল কংগ্রেসের আশীর্বাদপুষ্ট ছিলেন এবং তৃণমূল কংগ্রেস পাহাড়ের উন্নয়ন পর্ষদ এর দখল নেন প্রহসন নির্বাচনের মাধ্যমে ২০১১ নির্বাচনে পালাবদলের পরেই। পাহাড়ে আবার হিংসাত্মক আন্দোলনের পথ নেওয়ায় পাহাড় থেকে বিতাড়িত হয় বিমল এখন অনেকটাই বদলে গেছে সমীকরণ পাহাড়ে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা ভেঙে তৃণমূল কংগ্রেস কিছুটা শক্তিশালী হয়েছে তারা প্রার্থী করেছে পাহাড় বাসী কে অমর সিং রাই কে।

এবারের নির্বাচনে পাহাড়ে ভোট বিভক্ত হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

https://youtu.be/SAA3nelzE0U
সমন পাঠকের প্রচার পাহাড়ে

বাম প্রার্থী সমন পাঠক অসম্ভব কাজ কে সম্ভব করে দেখালেন গতকাল মিছিল করে পাহাড়ে প্রবেশ করেই প্রচারে নামেন দার্জিলিং পাহাড় অঞ্চলের সোনাদা অঞ্চল থেকে তার প্রচার পথে যাত্রা শুরু হয় প্রচুর মানুষের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায় শুধু তাই নয় বিভিন্ন জায়গায় তিনি মানুষের সঙ্গে নেপালি ভাষায় কথাবার্তা বলেন সিপিআইএম কে ভোট দানের তাকে ভোট দানের জন্য আবেদন করেন । সাংবাদিক সম্মেলন করে উনি বলেন বিভেদের রাজনীতি চলছে পাহাড়ে তার বিরুদ্ধে ভোট দিতে হবে মানুষকে ,ঠিক তেমনি পাহাড়ে সায়ত্ব শাসনের যে দাবি সে দাবিকে উচ্চতর প্রচেষ্টা করতে হবে যেটি পাহাড়ে সমর্থন নিয়ে দ্বারা নির্বাচিত হয়ে আইন সভায় নিয়ে যেতে হবে, এছাড়াও তিনি বলেন পাহাড়ের যে স্বায়ত্তশাসন গোষ্ঠী রয়েছে ঘটেছে দুর্নীতির চরম সীমায় উপস্থিত সঠিক তদন্ত করে অপরাধী ব্যাক্তিদের শাস্তি দিতে হবে। এছাড়াও তিনি বলেন গনতন্ত্রের প্রসার ঘটানোর লক্ষ্যে তিনি কাজ করে যাবেন এটা মনে করেন পাহাড় কখনোই বিচ্ছিন্ন নয় পশ্চিমবঙ্গের সাথে,পাহাড়ের অধিকার ও সুরক্ষা বৃদ্ধি যেরকম প্রয়োজন আছে পাহাড় সম্পর্ক সাধনের জন্য যাবতীয় প্রচেষ্টা করবেন সমতলের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে বিচ্ছিন্ন করে নয় ।এখন পর্যন্ত তিনি আত্মবিশ্বাসী পাহাড়বাসী এবার তাকে নিরাশ করবে না ২০০৬ থেকে ২০১২ সাল অব্দি সমান পাঠক রাজ্যসভার সাংসদ ছিলেন সংসদ থাকাকালীন বাধা থাকলেও কয়েক জায়গায় তিনি উন্নয়নের প্রকল্পের কাজ করে পাহাড়বাসী হওয়ায় তার প্রচারের ক্ষেত্রে একটা অন্য মাত্রা দিচ্ছে তা বলাই বাহুল্য রাজনৈতিক মহলের মতে নতুন সমীকরণের ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে পাহাড়ে।নির্বাচনে মূল লক্ষ্য হিসেবে বলেন কেন্দ্রে সম্প্রদায়কে বিজেপি কে পরাস্ত এবং বাংলায় গণতন্ত্র বিরোধী শক্তি তৃণমূল কংগ্রেস কে পরাস্ত করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *