বিপ্লবী কানাইলাল দত্তের শহীদ দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি

District News Kolkata
নিউজ ফ্রন্ট লাইনার ওয়েব ডেস্ক, ১০ ই নভেম্বর:অগ্নিযুগের বিপ্লবী কানাইলাল দত্ত আলিপুর সেন্ট্রাল জেলের মধ্যে বিপ্লবীদের বিরুদ্ধে সাক্ষী হওয়া নরেন্দ্রনাথ গোস্বামী কে হত্যা করার জন্য ১৯০৮ সালে ১০ নভেম্বর আজকের দিনে তার ফাঁসি হয়।কানাইলাল দত্ত ১৮৮৮ সালে ৩১ শে আগস্ট জন্ম অষ্টমী তিথিতে চন্দননগরে জন্মগ্রহণ করেন। পিতার নাম চুনীলাল দত্ত ও মাতার নাম ব্রজেশ্বরী দেবী। কানাইলাল শৈশবে বোম্বাইয়ের গিরগাঁও এরিয়ান এডুকেশন সোসাইটি স্কুলে এবং পরবর্তীকালে চন্দননগর ডুপ্লে বিদ্যামন্দির বর্তমানে কানাইলাল বিদ্যামন্দির এ অধ্যয়ন করেন। ১৯০৮ সালে হুগলি মহসিন কলেজ থেকে বিএ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেও রাজদ্রোহীতার অপরাধে কারারুদ্ধ হয় ।ইংরেজ সরকার তার ডিগ্রী প্রদানে বাধা দেয় কিন্তু কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় সে বাধা পেরিয়ে তাকে ডিগ্রী প্রদান করে। চন্দননগর ডুপ্লে কলেজ এর অধ্যক্ষ চারু চন্দ্র রায়ের কাছে কানাইলাল বিপ্লবের মন্ত্রে দীক্ষা নেয় এবং অস্ত্র চালনার শিক্ষা নেন। বিপ্লবী রাসবিহারী বসুর সাথে ছাত্র অবস্থা থেকে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ছিল ।কিঙ্সফোর্ডকেহত্যা করার জন্য তিনি প্রথমে মনোনীত হয়েছিলেন ।প্রফুল্ল চাকির সঙ্গে ক্ষুদিরাম বসু মোজাফফরপুর যাত্রা করেন।তখন কানাইলাল বারিন ঘোষের দলের সঙ্গে কলকাতা বোমা তৈরীর কাজে যোগদান করেন।১৯০৮ সালে তিনি উত্তর কলকাতার ১৫ নম্বর গোপীমোহন দত্ত লেন থেকে মানিকতলা বোমা মামলায় অস্ত্র আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়। কানাইলাল দত্ত রাজসাক্ষী নরেন্দ্রনাথ গোস্বামীর ওরফে নরেন গোঁসাই কে হত্যা করতে মনস্থির করেন। বিপ্লবী সত্যেন্দ্রনাথ বসুর সহযোগিতায় জেলের ভেতরে ৩১ শে আগস্ট ১৯০৮ সালে নরেন্দ্রনাথ গোস্বামীকে হত্যা করেন ।বিচারে কানাইলাল দত্তের ফাঁসির আদেশ হয়। ১০ নভেম্বর ১৯০৮ সালে ফাঁসির মঞ্চে প্রাণ উৎসর্গ করেন। তার কর্ম ও বীরের মতো মৃত্যুবরণ সমগ্র জাতিকে উদ্বুদ্ধ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *