চার হাজারের বেশী মানুষ চতুর্থীতেই করোনায় আক্রান্ত, পুজোয় মহাসংক্রমণের আশঙ্কা

District News

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েবডেস্ক, ২১ শে অক্টোবর :বাংলায় দৈনিক করোনা সংক্রমণের সব রেকর্ড ভেঙে চুরমার। চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা যে আশঙ্কা করছিলেন, পুজোর চতুর্থীতে সেই আশঙ্কাই সত্যি হল। চতুর্থীতেই চার হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে গেল করোনা সংক্রমণ। স্বাস্থ্য দফতরের গতকালের রিপোর্ট অনুযায়ী, কম টেস্টিং সত্ত্বেও মঙ্গলবার সর্বোচ্চ সংক্রমণ হল। পুজোর বাংলায় তাই উদ্বেগ চরমে।
স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্টে জানানো হয়েছে, বিগত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪,০২৯ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা গতদিন পর্যন্ত ছিল ৩ লক্ষ ২৫ হাজার ০২৮ জন। এদিন ৪,০১৯ জন বেড়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লক্ষ ২৯ হাজার ০৫৭ জন। রাজ্যে করোনা সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬,১৮০। এদিন মৃত্যু হয়েছে ৬১ জনের।

রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী মোট আক্রান্ত ৩ লক্ষ ২৯ হাজার ০৫৭ জনের মধ্যে এই মুহূর্তে চিকিৎসাধীন ৩৫ হাজার ১৭০ জন। এদিন ৫৮৬ জন বাড়ল সক্রিয়ের সংখ্যা। দৈনিক আক্রান্ত বেড়েছে ৪,০২৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা মুক্ত হয়ে ছাড়া পেয়েছেন ৩,৩৮২ জন। মোট করোনা মুক্ত হলেন ২ লক্ষ ৮৭ হাজার ৭০৭ জন। সুস্থতার রেট হয়েছে ৮৭.৪৩ শতাংশ।
করোনা বুলেটিনে জানানো হয়েছে এদিন পর্যন্ত করোনা টেস্ট হয়েছে ৪০ লক্ষ ৭৮ হাজার ৬৫১ জনের। ৯২টি ল্যাবরেটরিতে এই টেস্টিং হচ্ছে। ১০ লক্ষ জনের মধ্যে টেস্টিং রেট ৪৫,৩১৮। এদিন টেস্টিং হয়েছে ৪৩,৭৬২ জনের। মোট টেস্টিংয়ের নিরিখে করোনা সক্রিয়ের হার ৮.০৭ শতাংশ।

আক্রান্তের হার কলকাতা, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া ও হুগলি-সহ বেশ কিছু জেলায় উদ্বেগজনক। কলকাতায় করোনা আক্রান্ত ৭১,৪৬২। এদিন ৮০৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এরপরেই আছে উত্তর ২৪ পরগনা। এখানে আক্রান্ত ৬৬,৫০৯ জন। এদিন আক্রান্ত হয়েছেন ৮৭১ জন। তারপরেই আছে হাওড়া, হাওড়ায় আক্রান্ত ২২,৭১৬। এদিন আক্রান্ত হয়েছেন ২১১ জন। তারপরের স্থানে রয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা। এদিন ২২৫ জন বেড়ে হয়েছে ২১,৮৩৯। হুগলিতে ২৪৭ জন বেড়ে আক্রান্ত ১৬,১১২ জন। এরপর পূর্ব মেদিনীপুর ১৩,৪৩০। এদিন বেড়েছে ১৩৯ জন। পশ্চিম মেদিনীপুরে মোট আক্রান্ত ১২,৫৬৫। এদিন বৃদ্ধি পেয়েছে ২২৪।

এইরকম পরিস্থিতিতে হাইকোর্টের সাম্প্রতিক রায়কে স্বাগত জানাচ্ছেন রাজ‍্যের অধিকাংশ মানুষ। তবে উদ্বেগের বিষয় হল কোনভাবেই একশ্রেণীর মানুষকে নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। পুজো প‍্যান্ডেলে ঢোকা নিষিদ্ধ হলেও মন্ডপের সামনে তাঁরা যথেচ্ছ ভিড় জমাচ্ছেন। ন‍্যূনতম স্বাস্থ‍্যবিধি মানার সদিচ্ছা তাঁদের অনেকের মধ‍্যেই দেখা যাচ্ছে না।
অন‍্যদিকে কলকাতার বড় পুজোর উদ‍্যোক্তাদের অনেকেই হাইকোর্টের রায়ের পুনর্বিবেচনার আবেদন জানিয়ে পিটিশন দাখিল করেছেন। তাঁদের বক্তব‍্য বেশকিছু বড় পুজো সংকীর্ণ গলির মধ‍্যে হওয়ায় সেখানে হাইকোর্ট নির্দেশিত নিয়মকানুন নাকি মানা সম্ভব নয়। এই টানাপোড়েনের মধ‍্যে পুজোয় সংক্রমণের ছবিটা যে কোন জায়গায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেটাই দেখার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *