দুর্গাপুরে শহীদ আশিষ ও জব্বার স্মরণে

District News Durgapur Paschim Bardhaman

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক,বিজয় সাহা, দুর্গাপূর,৬ ই আগস্ট:আগষ্ট আন্দোলনের শহীদদের স্মরণে ইস্পাত নগরী প্রকৃতির অমােঘ নিয়মে কালের পর কাল অতিবাহিত হয় । দার্শনিকরা বলেছেন , এক নদীতে দুইবার স্নান করা যায় না । কিন্তু নদী হলাে সভ্যতার ধারক বাহক , দেশ কাল নদীকে মা হিসেবেই গণ্য করেছে । নদীর জঠর থেকেই সভ্যতার উন্মেষ । আর আধুনিক দুর্গাপুবের ধারক বাহক হলাে ১৯৬৬ সালের আগষ্ট আন্দোলন ।

পরিবেশ পরিস্থিতি বদলেছে অনেক , আর তার সাথে বদলেছে মানুষের চিন্তা , চেতনা ও মনন । তা সত্বেও আশীষ – জব্বরের নামে দুর্গাপুর আজও তার শিকর খুঁজে পায় , আলােড়িত হয় ; তার নিজের গন্তব্য ঠিক করতে কোন ভুল কবে না ৷ আজ পর্যন্ত পৃথিবীর যত লিখিত ইতিহাস , তা হলাে শ্রেণী সংগ্রামের ইতিহাস । দ্রোহকাল উপস্থিত হলে এর তাৎপর্য বােঝা যায় । ১৯৬৬ সালে দুর্গাপুরকে নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয় । লক্ষ্য তাদের স্থির , গােকুলে যে শিশু বা শ্রমিকদের ঐক্য বাড়তে বাড়তে শাসকের গড়ে বিস্ফোরণ ঘটানাের অপেক্ষায় তাকে তাে আর বাড়তে দেওয়া যায় না । তাই তাদের রণসাজ , পুলিশ ও সি আর পি নামিয়ে শ্রমিকদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘােষণা । শেষ পর্যন্ত সত্যের জয় অনিবার্য , ট্রেড ইউনিয়নের স্বীকৃতি দিয়ে শ্রমিক নেতাদের সাথে কথা বলে মর্যাদা দিতে বাধ্য হয় সে যুগের অনমণীয় ম্যানেজমেন্ট ও সরকার । আর এই উন্মেষ ঘটেছিল দু দুটো তাজা প্রাণের বিনিময়ে শহীদ হয়েছেন হিন্দুস্থান স্টীল এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক আশীষ দাশগুপ্ত এবং আব্দুল জব্বার ।

এই দুই শহীদ ও তার পরবর্তী কালের ৩৩ জন শহীদদের আত্ম বলিদানকে স্মরণে রেখেই আজকের এই করােনা অতিমারীতেও শ্রমিক সহ সমাজের সব অংশের মানুষ সমবেত হন আশীষ মার্কেটের শহীদ বেদীর সামনে , তারা আর একবার শপথ নিলেন অতিমারীকে অতিক্রম করার , আর একবার সংগঠিত হয়ে লড়াই করার । আজ ধর্মীয় উন্মাদনা ও সাম্প্রদায়িক হানাহানির রাজনীতি নিয়ে এসেছে , ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনে যে সংঘ পরিবাবের কোনাে ভূমিকা ছিলাে না , অযােধ্যায় রাম মন্দিবের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনকে তারা স্বাধীনতা আন্দোলনের থেকেও বেশী মহিমান্বিত করতে চাইছে । ভারতবর্ষের ধর্ম নিরপেক্ষ চরিত্রে কালিমা লেপন কবে দেশটাকে বিভক্ত করার এই চক্রান্তের জাল ছিন্ন কবে ঐক্যবদ্ধ দেশ গড়ার শপথ আজ নেওয়া হল । দেশের সম্পদ লুট করার এবং বিক্রি করার , শ্রমজীবী মানুষের লড়াইয়ের অধিকার কেড়ে নেওয়ার চেষ্টার বিরুদ্ধে মজবুত ঐক্য গড়ে তােলার আহ্বান জানিয়েই এই দিনটি মর্যাদার সাথে পালন করা হল ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *