আর.এস.পি উত্তর কলকাতার উদ্যোগে “মানুষের সব্জিঘর”।

District News Kolkata

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক,কলকাতা,চন্দন দাস,২৭ শে সেপ্টেম্বর:লকডাউনের প্রথমদিন থেকেই আর.এস.পি-র উত্তর কলকাতা -১ আঞ্চলিক কমিটির কর্মীরা ধারাবাহিকভাবে মানুষের পাশে।

লকডাউনের প্রথমদিনেই ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের ২০০০ পরিবারের হাতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দেওয়া দিয়ে শুরু তাঁদের এই মানুষের পাশে থাকা।এরপর প্রান্তিক মানুষদের কাছে চাল,ডাল, আলু, সোয়াবিন পৌছে দেওয়া।তারপর এলাকার মানুষদের কে বাড়িতে আবদ্ধ রাখতে অভিনব উদ্যোগে লুডো,সান্ধ্যকালিন টিফিন দেওয়া, এমনকী আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত ছাত্র -ছাত্রীদের পাশে দাঁড়াতে কানিংএর কুমারমারি মামা ভাগ্না প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২৫০ ছাত্র – ছাত্রীদের স্কুল ব্যাগ, টিফিন সহ টিফিন বক্স, পেন, পেন্সিল,রাবার,স্কেল সহ পেন্সিল বক্স, খাতা,মাস্ক, ওষুধ পৌঁছে দেওয়া। তারপর ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের সব এরিয়া, বস্তিতে স্যানিটেশন করা।

এবার তাঁদের আবার অভিনব উদ্যোগ অত্যন্ত কম দামে মানুষদের হাতে তুলে সব্জি তুলে দেওয়ার জন্য “মানুষের সব্জিঘর” খোলা। প্রতিদিন এই সব্জিঘর খোলা থাকবে বিকেল ৫ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত্য। রবিবার বিকেল ছাড়াও সকাল ৭ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত্য। আজ এই মানুষের সব্জিঘরের উদ্বোধন করলেন আর.এস.পি-র কেন্দ্রীয় সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য ও ইউ.টি.ইউ.সির সরবভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অশোক ঘোষ।ধারাবাহিকভাবে মানুষের পাশে থাকার মূল উদ্যোগতা আর.এস.পি কলকাতা জেলার নেতা, ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর দীপু সাহা বলেন করোনা আবহে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার আজ ব্যর্থ মানুষের পাশে থাকতে। তাই আমাদেরকেই আজ রাস্তায় নেমে মানুষদের পাশে প্রতিদিন থাকতে হচ্ছে। এলাকার মানুষদের তিনি ধন্যবাদ জানান তাঁদের এই মানুষের জন্য ধারাবাহিকভাবে কাজ করতে সহযোগিতা করবার জন্য। এই কাজ তারা ধারাবাহিকভাবে আগামিদিনেও করে যাবে। আগামিদিনেও যাতে এলাকার মানুষ তাঁদের পাশে থাকেন তার অনুরোধ তিনি সকলের কাছে করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *