৮০-১০০কিলোমিটার বেগে পশ্চিমবঙ্গে আছড়ে পড়তে পারে ফনী,জারি সতর্কতা

News West Bengal

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক,১ মে;
মাত্র ৭১০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে ঘূর্ণিঝড় পুরী থেকে। ঘন্টায় ৭ কিলোমিটার বেগে ওড়িশার দিকে এগিয়ে আসছে ফনী। শুক্রবার বিকেলে গোপালপুর ও চাঁদ বালির ওপর ১৮৫ থেকে ২০৫ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়তে পারে ফনী বলে জানিয়েছে মৌসম ভবন। ফনীর প্রভাবে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে ওড়িশার উপকূলবর্তী অঞ্চলে। ২০০ মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে জানিয়েছে মৌসম ভবন। রেড এলার্ট জারি হয়েছে গজোপতি, গঞ্জাম, পুরী,খুরদা, কটক,জগৎসিংহপুর, জাজপুর, বালাসোর,কেন্দ্রপাড়া কেওনঝড়ে। এছাড়াও সম্বলপুর সহ তিনটি জায়গায় জারি করা হয়েছে ইয়েলো এলার্ট।

মঙ্গলবার রাত থেকেই তীব্র ঘূর্ণিঝড়ের আকার নিয়েছে ফনী। ওড়িশা আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর ওড়িশা উপকূলবর্তী অঞ্চলে আঘাত হানার পরে ঘূর্ণিঝড়টি পশ্চিমবঙ্গের দিকে বেঁকে যাবে। পশ্চিমবঙ্গে ঢোকার সময় ঝড়ের গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ৮০ থেকে ১০০ কিলোমিটার। সেই সঙ্গে রয়েছে প্রবল বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা। মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে দুই মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, দুই ২৪পরগনা ও কলকাতাতে।

ইতিমধ্যেই দীঘা, মন্দারমনি, বকখালি,সাগরদ্বীপ সহ উপকূলবর্তী এলাকায় জারি করা হয়েছে সর্তকতা। এই প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবিলা করতে প্রস্তুতি নিচ্ছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী।

অন্যদিকে ২ মের মধ্যে সব পর্যটকদের পুরি ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে ওড়িশা প্রশাসন। ঐদিন থেকে সমস্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। সব রাজ্যবাসীকে ঘরে থাকার কথাও বলেছে প্রশাসন। উপকূল রক্ষী বাহিনী, নৌ বাহিনী ও সেনা হেলিকপ্টার পরিস্থিতি মোকাবিলায় তৈরি রয়েছে। ওড়িশা, অন্ধ্রপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গের বিমান বাহিনীও তৈরি রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *