হিমালয়ের কোলে মৃতদেহ ও আবর্জনা র আরেকটা পাহাড়

International News

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক, কাঠমান্ডু, ৬ ই জুন:গ্রীষ্মের তাপদাহ হিমালয়ের বরফ গলতে আরম্ভ করেছে, খবরে প্রকাশ এই বছরে এভারেস্ট শৃঙ্গ জয় করতে গিয়ে প্রায় ৩০০ জনের মৃত্যু হয়েছে। অনেক আবহাওয়াবিদদের অনুমান হিমবাহ গলতে সেই মৃতদেহ বেরিয়ে আসবে ,হিমবাহ গলতেই কয়েক টন হিমালয়ের বাইরে বেরিয়ে এলো প্রায় 11 টন এর মত আবর্জনা, কি ছিল না সেখানে বর্জ্য পদার্থ থেকে প্রচুর প্লাস্টিক ভাঙ্গা সিঁড়ি এবং পর্বতারোহীদের এর জন্য ব্যবহৃত অনেক সরঞ্জাম। সেই সঙ্গে এখন পর্যন্ত চারটি মৃতদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে ।সেই মৃতদেহগুলো কার তা নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা।

এই ঘটনায় নেপাল সরকার সমালোচনার মুখে পড়েছে এভারেস্ট শৃঙ্গ জয়ের অভিযানে নেপাল সরকার একটা বহু বংশের বহু একটা টাকা তারা আয় করে। তথ্য বিজ্ঞ মহল এর মতে সেই টাকা কে সঠিকভাবে ব্যবহার হয়েছে কিনা তা এখন প্রমাণ মিলছে। হিমালয় কি সুন্দর করার লক্ষ্যে যে পদ্ধতি যে পদক্ষেপ নেওয়া দরকার ছিল সরকারের, সেটি তারা নিতে ব্যর্থ হয়েছে।

যদি প্রথম থেকেই হিমালয় কে পরিষ্কার করার কাজে নিযুক্ত থাকত তাই আবর্জনার পাহাড় তৈরি হতো না। হিমালয় কে সঠিক ভাবে পরিষ্কার রাখার ক্ষেত্রে নেপাল সরকারের ব্যর্থতা বেশ চোখে পড়ার মতো।
নেপাল সরকারের হিমালয় পরিষ্কার করার যে কমিটি গঠন করা হয়েছে তার অধিকর্তা নিল দর্জি বলেন পর্বতারোহীরা এসেছে গতবছর গত বিগত বছরের থেকে বহু অংকে বেশি, হয়তো সম্ভব হচ্ছে না । যদিও তিনি বলেন এ বছরে এভারেস্ট শৃঙ্গের অভিযানে প্রায় ৩০০ জনের মৃত্যু ঘটেছে, আবহাওয়া খারাপ হওয়ার জন্য সব মৃতদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি, হিমবাহ গলনের ফলে । গত সপ্তাহে হিমালয় গলার ফলেই প্রায় ৪ টি মৃতদেহ পাওয়া গেছে আরও মৃতদেহ পাওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেছে নেপাল সরকার।

প্রায় কুড়ি জন শেরপা কে নিয়ে গঠিত হয়েছে এই পরিষ্কার করার অভিযান, সাউথ কল থেকে আবর্জনা এখন পর্যন্ত নামিয়ে আনা যায়নি আবহাওয়া খারাপের । এই ঘটনায় স্তম্ভিত আবহাওয়াবিদরা যারা এভাবে শৃঙ্গের জয়ের জন্য যাচ্ছেন তারাও যে পরিবেশকে পরিষ্কার ও স্বচ্ছ রাখার চেষ্টা করছে না এই ঘটনায় তা প্রমান করছে । যে মৃতদেহগুলি উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে তার সবই এই অঞ্চল থেকেই।গত বছর কয়েক জন তিব্বত থেকে এভারেস্ট অভিযান করেছিলেন যদিও মাঝপথে তারা নিখোঁজ হয়ে যান আশঙ্কা করা হচ্ছে সেই মৃতদেহগুলি তাদেরই।

বিশ্ব পরিবেশ দিবস ঘটা করেই পালন হচ্ছে কিন্তু হিমালয়ের কোলে সেই পরিবেশ রক্ষা করার প্রয়াস দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না ,তা অবশ্যই আশঙ্কার বলে অভিমত আবহাওয়াবিদদের। তারা আবেদন করেছে নেপাল সরকারের কাছে পরিষ্কারের কাজ সম্পন্ন করার তা না হয় একটি আবর্জনার পাহাড় গড়ে উঠবে।

নেপাল সরকার সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছে হিমালয় কে রক্ষা করার কুড়ি জন সেরপার হাতেই । কত জন মৃতদেহ তারা উদ্ধার করতে পারছে হিমালয়ের আবর্জনা ঘিরে তৈরি হয়েছে বিশ্ব জুড়ে বিতর্ক বিশ্ব পরিবেশ সংস্থা তারা আবেদন করেছে নেপাল সরকারের কাছে আবর্জনা মুক্ত করার প্রয়াস সর্বাধিক অগ্রাধিকার দিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *