বিক্ষিপ্ত অশান্তি ছাড়া মোটের উপর শান্তিতেই হাওড়ার সাত আসনের ভোট গ্রহণ

District News

নিউজ ফ্রন্টলাইনার ওয়েব ডেস্ক,হাওড়া: তৃতীয় দফায় রাজ্যের ৩১ টি আসনের সঙ্গে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হলো হাওড়ার সাত আসনে। এদিন হাওড়ার জগৎবল্লবপুর, উলুবেড়িয়া দক্ষিণ, উলুবেড়িয়া উত্তর, বাগনান, শ্যামপুর, আমতা ও উদয়নারায়ণপুর বিধানসভা এলাকায় ভোট গ্রহণ হয়। এদিন ভোট শুরুর আগেই উলুবেড়িয়া উত্তর বিধানসভার অন্তর্গত তুলসিবেড়ীয়ায় তৃণমূল নেতা গৌতম ঘোষের বাড়িতে সেক্টর অফিসার ইভিএম ও ভিভি প্যাড রাখার অভিযোগে উত্তেজনা ছড়ায়। পরে ঘটনাস্থলে পৌছায় উলুবেড়িয়া-২ নম্বর ব্লকের ভিডিও।

তাকে ও পুলিশকে ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখান এলাকাবাসীরা। পরে এলাকাবাসীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশের পক্ষ থেকে লাঠিচার্জও করা হয়। পরে উদ্ধার করা হয় ওই চারটি ইভিএম ও ভিভি প্যাড।যদিও পরে ওই সেক্টর অফিসার তপন সরকার সহ এই কাজে যুক্ত থাকার অপরাধে পাঁচ জনকে সাসপেন্ড করে কমিশন। অন্যদিকে তৃণমূল ও আইএসএফ কর্নীদের মধ্যে হাতাহাতি হয় জগৎবল্লবপুরের কেশবপুরের ১৮১ নম্বর বুথের সামনে।

পরে এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। অন্যদিকে উলুবেড়িয়া দক্ষিণে বিজেপি প্রার্থী পাপিয়া অধিকারীকে উলুবেড়িয়ার এক বুথে ঢুকতে বাঁধা দেন বুথের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সিআইএসএফ জওয়ানরা। এদিন এমনি অভিযোগ করেন উলুবেড়িয়া দক্ষিণের বিজেপি প্রার্থী পাপিয়া অধিকারী।

এদিকে তৃণমূলের হাতে আক্রান্ত দলীয় কর্মীকে দেখতে উলুবেড়িয়া হাসপাতালে গেলে সেখানে তৃণমূল কর্মীদের হাতে আক্রান্ত হন তিনি। অন্যদিকে বাগনানের চাঁদনাপুরের ২২০ নম্বর বুথের ২০০ মিটারের মধ্যে বিজেপি ও তৃণমূলের বুথ ক্যাম্প থাকায় তা তুলে দেন পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। অপর দিকে ওই বিধানসভার হাল্যানের বাগপাড়ার ২৮৮ নম্বর বুথে ভোটারদের ভোট দানে বাধা দেবার অভিযোগ ওঠে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের বিরুদ্ধে। অপরদিকে উলুবেড়িয়া উত্তর বিধানসভার মুক্তিরচকে তৃণমূল প্রাথী নির্মল মাঝিকে লক্ষ্য করে ইট ছোড়ার পাশাপাশি বাঁশ নিয়ে আক্রমণ করা হয় তাকে। এক্ষেত্রে অভিযোগের তির ওঠে বিজেপির দিকে, যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি।

অপর দিকে আমতার বেশকিছু বুথে ছাপ্পা ভোটের অভিযোগে আমতা থানার সামনে বিক্ষোভ দেখান উলুবেড়িয়া উত্তরের বিজেপি প্রাথী চিরণ বেরা। অপর দিকে আমতা বিধাসভার অন্তর্গত দক্ষিণ ভাটোরার ৯০ নম্বর বুথের এক বিজেপি কর্মীর বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে শাসক দল। অন্যদিকে শ্যামপুরে বেশকিছু বুথে বিজেপির পুলিং এজেন্ট দিতে সমস্যা হয়েছে বলে খবর। এদিকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত হাওড়ায় ভোট পড়েছে ৮১.৭৯ শতাংশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *